রোজা রাখার পর বদহজম হচ্ছে? চিন্তা নেই আছে ঘরোয়া কিছু প্রতিকার

Ad Blocker Detected

Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors. Please consider supporting us by disabling your ad blocker.

অতিরিক্ত মসলাদার ও ঝাল খাবার খাওয়ার ফলে বদহজমের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ফাস্ট কেয়ার হাসপাতালের মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ কামরুল হাসান বলেন, “রোজার এই এক মাসে দীর্ঘসময় না খেয়ে থাকার পর একসঙ্গে অনেক খাবার খাওয়া হয়। তাছাড়া ইফতারের খাবারের তালিকায় তেলে ভাজা খাবারের পরিমাণই থাকে বেশি। তাই হজমে সমস্যা দেখা দেয়। এছাড়া মানসিক চাপ, ওবেসিটি, আলসার, পাকস্থলীতে সংক্রমণ, থায়রয়েড সমস্যা, ধূমপান ইত্যাদি কারণেও বদহজম হতে পারে।”

তিনি আরও বলেন, “হজমে গড়বড়ের কারণে গ্যাস, পেট ফুলে থাকা, ব্যথা হওয়া এবং জ্বালাপোড়া ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে। এ ধরনের লক্ষণ দেখা দিলে প্রথমেই খানিকটা পানি পান করতে হবে। এতে কিছুটা আরাম পাওয়া যাবে।”

এছাড়াও বদহজমের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ঘরোয়া কিছু সমাধান জানিয়েছে স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইট।

মৌরি দানা:

অতিরিক্ত ঝাল বা মসলাদার খাবার খাওয়ার কারণে যদি বদহজম হয় তাহলে তার উপশমে মৌরি দানা বেশ উপকারী। মৌরি দানায় থাকা প্রাকৃতিক তেল পেটের সমস্যা সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে।

মৌরি দানা শুকিয়ে ভেজে, গুঁড়া করে নিতে হবে। এক চা-চামচ মৌরি দানার গুঁড়া পানির সঙ্গে গুলিয়ে দিনে দু’বার পান করতে হবে।

এছাড়া এক কাপ গরম পানিতে দুই চা-চামচ মৌরি দানা ফুটিয়ে চায়ের মতো করেও পান করা যেতে পারে। যদি বদহজমের লক্ষণ দেখা দেয় তাহলে মৌরি দানা চাবিয়ে খেলেও কিছুটা উপকার পাওয়া যাবে।

আদা:

হজমে সহায়ক পাচক রস ও এনজাইমের নিঃসরণ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। আর তাই হজমের সমস্যায় আদা বেশ ভালো প্রতিষেধক। বিশেষত অতিরিক্ত খাওয়ার পরে হজমের জন্য আদা বেশ উপকারী। অতিরিক্ত খাওয়ার পর কয়েক টুকরা তাজা আদা সামন্য লবণ ছিটিয়ে চুষে খেতে পারেন।

* দুই চামচ আদার রস, এক চামচ লেবুর রস, এক চিমটি লবণ মিশিয়ে খেতে হবে। পানির সঙ্গে মিশিয়েও ওই মিশ্রণ সেবন করা যেতে পারে।

* এছাড়া এক কাপ গরম পানিতে দুই চামচ আদার রস ও এক চামচ মধু মিশিয়ে পান করুন।

* আদা চাও বদহজমের কারণে হওয়া পেট ব্যথা উপশমের জন্য উপকারী।

* রান্নার সময় তরকারিতে আদা ব্যবহার করলে তা হজমে সহায়তা করবে।

বেইকিং সোডা:

পেটে অ্যাসিডিটির কারণে বদহজমের সমস্যা হয়ে থাকে। বেইকিং সোডা অ্যাসিডিটি কমাতে সাহায্য করে। আধা গ্লাস পানিতে দেড় চামচ বেইকিং সোডা গুলে পান করলে পেটে ব্যথায় আরাম পাওয়া যাবে। বদহজম এবং পেটে গ্যাসের সমস্যা থেকে রেহাই পেতে বেইকিং সোডা অত্যন্ত উপকারী একটি উপাদান।

অ্যাপেল সাইডার ভিনিগার:

হজম প্রক্রিয়া সচল রাখতে অ্যাপেল সাইডার ভিনিগার বেশ কার্যকর। অ্যাসিডিক উপাদান থাকলেও বদহজমে এই ভিনিগার বেশ উপকারী।

এক কাপ পানিতে এক টেবিল-চামচ ভিনিগার ও এক টেবিল-চামচ মধু মিশিয়ে মিশ্রণটি পান করলে চটজলদি উপকার পাওয়া যাবে।

ভেষজ চা:

বিভিন্ন ভেষজ উপাদান দিয়ে বানানো চা শরীরের জন্য বেশ উপকারী। ভারী খাবার খাওয়ার পর এক কাপ ভেষজ চা বেশ উপাদেয়। বাজারে বিভিন্ন ভেষজ উপাদান সমৃদ্ধ চা-য়ের টি-ব্যাগ কিনতে পাওয়া যায়। পছন্দসই ফ্লেইভারের টি ব্যাগ নিয়ে গরম পানিতে ডুবিয়ে তৈরি করে ফেলতে পারেন পছন্দসই ভেষজ চা।

বিশেষত পেপারমিন্ট এবং ক্যামলাই টি পেটের সমস্যায় বেশি উপকারী। পেটে জ্বালাপোড়া এবং অস্বস্থিকর অনুভূতি উপশমে এই উপাদান মিশ্রিত চা বেশি কার্যকর।

Facebook Comments

Leave a Reply